Land Measurement In Bengali

এখানে একটি পরিমাপকে বিভিন্ন ভাবে তুলে ধরা হয়েছে কারন প্রত্যেকে যেন যার যার সুবিধা মতে সহজে বুঝতে পারেন।
১ অযুতাংশ = ৪ বর্গফুট ৫২.৩৬ বর্গ ইঞ্চি।
১ ছটাক = ৪৫ বর্গফুট।
—————————————–
১ শতাংশ =৪৩৫ বর্গফুট ৬৫.৪৫ বর্গ ইঞ্চি।
১ শতাংশ = ১০০ অযুতাংশ।
৫ শতাংশ = ৩ কাঠা। = ১৩০৬.৮ বর্গফুট ।
১০ শতাংশ = ৬ কাঠা। = ৪৩৫৬ বর্গফুট ।
—————————————–
১ কাঠা = ৭২০ বর্গফুট।
১ কাঠা = ৮০ বর্গগজ।
১ কাঠা = ১.৬৫ শতাংশ।
১ কাঠা = ১৬ ছটাক।
২০ কাঠা = ১ বিঘা।
৬০.৫ কাঠা = ১ একর।
—————————————
১ বিঘা = ১৪,৪০০ বর্গফুট।
১ বিঘা = ১৬০০ বর্গগজ।
১ বিঘা = ২০ কাঠা ।
১ বিঘা = ৩৩ শতাংশ।
—————————————
১ একর = ১০০ শতাংশ।
১ একর = ৩ বিঘা ৮ ছটাক।
১ একর = ৬০.৫ কাঠা।
————————————–
চট্টগ্রামের বাসিন্দাদের জন্য নিন্মের হিসাবটা একটু বেশী কাজে লাগবে।

১ গন্ডা = ৮৭১ বর্গফুট।
১ গন্ডা = ২ শতাংশ।
১ গন্ডা = ১.২১ কাঠা।
২০ গন্ডা = ১ কানি ।

১ কানি = ১৬,৯৯০ বর্গফুট।
১ কানি = ৩৯ শতাংশ।
১ কানি = ২৩.৫ কাঠা।
১ কানি = ২০ গন্ডা।
———————————————

সুতরাং এবার আপনি নিজেই হিসাব করে দেখুন আপনার ক্রয়কৃত বা পৈত্রিক জায়গা-জমি বা ফ্ল্যাটের আয়তন কত?
নিন্মে কিছু সব সময় আলোচনা হয় এমন জমি বা ফ্ল্যাটের আয়তন বা পরিমাপ সর্ম্পকে ধারনা দেওয়া হলোঃ-

১. একটি ৩ কাঠার প্লটে মোট জমির পরিমাপ হয়= ২১৬০ স্কয়ার বর্গফুট।
২. একটি ৫ কাঠার প্লটে মোট জমির পরিমাপ হয়= ৩৬০০ স্কয়ার বর্গফুট।
৩. একটি ১০ কাঠার প্লটে মোট জমির পরিমাপ হয়= ৭২০০ স্কয়ার বর্গফুট।

এখন আপনি ভেবে দেখুন আপনি কত স্কয়ার বর্গফুটের বাসা তৈরী করবেন। বর্তমানে রাজউক ও অন্যান্য বিভাগীয় শহরের ইমারত নিমার্ণ আইনে প্রায় এক তৃতীয়াংশ জায়গা খালি রাখতে হয়। তাহলে এই এক তৃতীয়াংশ জায়গা খালি রেখে আপনি যে প্লট কিনেছেন তাতে কত স্কয়ার বর্গফুটের একটি বাড়ী তৈরী করা যাবে তা ভেবে দেখুন। অর্থাৎ আপনি ৩ কাঠার প্লটে ১৪৪০ স্কয়ার বর্গফুটের বাড়ী করে বাকী ৭২০ স্কয়ার বর্গফুট জায়গা খালি রাখতে হবে বাড়ীর চারপাশে ড্রেন ও আলো বাতাসের জন্য।

ধরুন বর্তমানে যারা ফ্ল্যাট কেনেন তাদের ক্ষেত্রে– যেমন:-
১. ৯০০ স্কয়ার বর্গফুটের ফ্ল্যাটে সিড়ি, ফ্ল্যাটের সামানে, সাইডে, পিছনের জায়গা বাদ দিয়ে টিকবে ৬০০ থেকে ৬৫০ স্কয়ার বর্গফুট ।
২. ১২০০ স্কয়ার বর্গফুটের ফ্ল্যাটে সিড়ি, ফ্ল্যাটের সামানে, সাইডে, পিছনের জায়গা বাদ দিয়ে টিকবে ৭৮০ থেকে ৮৫০ স্কয়ার বর্গফুট ।

৩. ১৬০০ স্কয়ার বর্গফুটের ফ্ল্যাটে সিড়ি, ফ্ল্যাটের সামানে, সাইডে, পিছনের জায়গা বাদ দিয়ে টিকবে ১২০০ থেকে ১২৫০ স্কয়ার বর্গফুট ।

SouthIndia Medical Treatment Guide

তামিলনাড়ু রাজ্যে রয়েছে চারটি বিখ্যাত হাসপাতাল। চোখ বন্ধ করে এদের যেকোনো একটিতে চিকিৎসা করাতেই পারেন। কিন্তু কোন হাসপাতালে আপনার যাওয়া সঠিক হবে তা জানবেন কিভাবে?এটা জানতে পুরো প্রতিবেদনটি পড়ুন। কথা দিচ্ছি আপনি নিজেই ঠিক করে নিতে পারবেন কোন হাসপাতালে চিকিৎসা করাবেন।

১. অ্যাপোলো (Apollo Hospital) –
অ্যাপোলো হাসপাতাল চেন্নাইয়ের মধ্যে সবচেয়ে ভালো। এখানে রয়েছে সবচেয়ে উন্নত যন্ত্রপাতি এবং বিশ্বমানের ডাক্তার। কিন্তু এখানে খরচ দক্ষিন ভারতের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। এখানে চিকিৎসা করাতে সময় লাগে দক্ষিন ভারতের অন্যান্য হাসপাতালের তুলনায় অনেক কম। সুতরাং কম সময়ে ভালো চিকিৎসা করাতে চাইলে এখানে চলে আসুন। তবে চিকিৎসার খরচ পড়বে অন্য হাসপাতালের থেকে অনেক বেশি। অবস্থান – অ্যাপোলো হাসপাতাল চেন্নাই সেন্ট্রাল রেলওয়ে স্টেশান থেকে মাত্র ৪ কিমি এবং চেন্নাই এগমোর রেল স্টেশান থেকে ৩ কিমি দূরে অবস্থিত। হাওড়া অথবা শিয়ালদা থেকে অনেক ট্রেন পেয়ে যাবেন। এই হাসপাতাল চেন্নাই এয়ারপোর্ট থেকে ১৫ কিমি দূরে অবস্থিত।

ঠিকানা –
Apollo Hospitals, Greams Road
21, Greams Lane
Off Greams Road
Chennai – 600006
ফোন – +91-44-28290200 / +91-44-28293333
+91-44-28294429

থাকা ও খাওয়া –
চেন্নাইয়ের অ্যাপোলোতে গেলে ভাষা নিয়ে একটু সমস্যা হলেও খাওয়া দাওয়া নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না। ঠিক অ্যাপোলো হাসপাতালের পাশেই রয়েছে অনেকগুলি বাঙালী হোটেল। কম খরচে বাঙালীর মাছ-ভাত জুটে যাবে। তবে নিজেরা রান্না করেও খেতে পারবেন। তাঁর জন্য আলাদা হোটেল আছে। সেখানে থাকতে হবে। ওখান থেকে রান্না করার জন্য বাসন ভাড়া নিতে পারবেন। ভাষা নিয়েও খুব একটা সমস্যা হবে না। সমান্য হিন্দি বা ইংরাজীতে জ্ঞান থাকলেই চলে যাবে। থাকার জন্য রয়েছে দামী, কমদামী অনেক হোটেল। চেষ্টা করবেন হাসপাতালের সবচেয়ে কাছে থাকার। তাহলে প্রতিদিন হাসপাতালে যাওয়ার খরচ বেঁচে যাবে।

সময় –
১। টুকটাক ডাক্তার দেখানোর জন্য গেলে ৮ থেকে ১০ দিনের প্ল্যান করলেই চলবে।২। বড় মাপের চিকিৎসা অথবা অপারেশানের জন্য কমপক্ষে ২০ দিনের মতো সময় নিয়ে যেতে হবে।

রেজিস্ট্রেশান :
এ্যাপোলো হাসপাতালে ঢোকার মুখেই ডান দিকে প্রথমে যে বিল্ডিংটা রয়েছে তার নাম “সুন্দুরি ব্লক/Sundoori Block”। এই ব্লকেই হয় রেজিস্ট্রেশান।

২. শ্রী রামাচন্দ্র মেডিকেল সেন্টার (Sri Ramachandra Medical Centre) –
পকেটে টাকা কম থাকলে তাহলে আপনি চেন্নাইয়ের শ্রী রামাচন্দ্র মেডিকেল সেন্টারে চিকিৎসা করাত পারেন। তবে এখানে চিকিৎসার জন্য সময় লাগবে সি.এম.সি ভেলোরের তুলনায় অনেক কম। শ্রী রামাচন্দ্র মেডিকেল সেন্টারটি ১৯৮৫ সালে প্রতিষ্ঠা হয় চেন্নাই এর পোরুর নামক জায়গায়। তবে সেরকমভাবে এর পরিচিতি না থাকায় আমরা অনেকেই এই মেডিকেল সেন্টার সম্পর্কে কিছুই জানিনা। কিন্তু এখানে চিকিৎসা দানের পদ্ধতি অনেক ভালো আর খরচও বেশ কম। বিশেষ করে মেডিকেল সেন্টারটির পরিবেশ আর চিকিৎসার ব্যবস্থাপনা চোখে লাগার মতো।

ঠিকানা –
এই হাসপাতাল চেন্নাই সেন্ট্রাল রেলওয়ে স্টেশন থেকে ১৭ কিমি দূরে অবস্থিত।
Sri Ramachandra Medical Centre
No.1 Ramachandra Nagar, Porur
Chennai, Tamil Nadu,

৩. ভেলোরের সি.এম.সি হাসপাতাল –
কম খরচে ভালো মানের চিকিৎসার চিকিৎসার জন্য বিখ্যাত দক্ষিন ভারত। দক্ষিন ভারতের তামিলনাডু রাজ্যের ছোট এক জেলা শহর ভেলোর। সি.এম.সি হল ভারতের একেবারে প্রথম শ্রেনীর হাসপাতাল। এই হাসপাতাল ঘিরে গড়ে উঠেছে অসংখ্য হোটেল ও লজ। রুম ভাড়াও তুলনামূলক ভাবে অনেক কম। কম খরচে চিকিৎসা করাতে চাইলে সি.এম.সি সবচেয়ে ভালো। তবে অত্যধিক ভিড়ের জন্য এখানে চিকিৎসা করাতে সময় লাগে অনেক বেশি।

কেন ভেলোরে চিকিৎসা করবেন?
ভেলোরে রয়েছে ভারতের বিখ্যাত সিএমসি হাসপাতাল। এই হাসপাতালে পাবেন বিশ্বমানের চিকিৎসা তুলনামূলক ভাবে অনেক কম খরচে। কারণ এটি খ্রিস্টান মিশনারী পরিচালিত একটি অলাভজনক হাসপাতাল।

ঠিকানা –
এই হাসপাতেলে যেতে গেলে আপনাকে নামতে হবে কাটপাটি স্টেশনে। কোলকাতা থেকে কাটপাটি স্টেশনে অনেকগুলি ট্রেন দাঁড়ায়। কাটপাটি স্টেশন থেকে অনেক গাড়ি পেয়ে যাবেন।
Address :
Ida Scudder Road, Vellore, Tamil Nadu 632004
Phone: 0416 228 1000

কোথায় থাকবেন?
সিএমসি এর আশে পাশেই অসংখ্য হোটেল, লজ পাবেন। লজগুলোতে পাবেন রান্নার সুবিধা এবং রুম ভাড়াও তুলনামূলক ভাবে কম।

৪. শ্রী নারায়নী হাসপাতালে (Sri Narayani Hospital & Research Centre) –
অল্প খরচ এবং অল্প সময়ে ভালো চিকিৎসা পেতে হলে ভেলোরের শ্রী নারায়নী হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে পারেন। সি.এম.সি ভেলোর হাসপাতাল থেকে এই শ্রী নারায়নী হাসপাতালের দূরত্ব মাত্র ৮ কিলোমিটার। ভেলোর একটি ছোট শহর হলেও এখানে রয়েছে দুটি বিশ্বমানের হাসপাতাল। কাটপাটি স্টেশন থেকে এই হাসপাতালের দূরত্ব হল ২৮ কিলোমিটার।

ঠিকানা –
Sri Narayani Hospital & Research Centre
Azad Road, Sripuram, Thirumalaikodi, Vellore, Tamil Nadu 632055
Phone: 0416 220 6301

৫. মানিপাল হাসপাতাল (Manipal Hospital) –
মনিপাল হাসপাতাল বেঙ্গালুরুর একটি প্রধান হাসপাতাল। এটি একটি ৬০০ বেড বিশিষ্ট একটি হাসপাতাল। আরো ৩০০ বেড এখানে শিগ্রই যুক্ত করার পরিকল্পনা চলছে। এখানে চিকিৎসার খরচ চেন্নাইএর অ্যাপোলোর তুলনায় অনেকটা কম।
এই হাসপাতালের অনেকগুলি ইউনিট আছে যেমন মনিপাল হার্ট ইনস্টিটিউট, মিনিপাল ইনস্টিটিউট অব নেফ্রোলজি অ্যান্ড ইউরোলজি, মনিপাল ইনস্টিটিউট অব নিউরোলজিকাল ডিসঅর্ডার, মনিপাল কম্পিভেনশিয়াল ক্যান্সার সেন্টার এবং মনিপাল ইনস্টিটিউট অব ক্যান্সার সেন্টার। এই সব সেন্টার গুলি সাফল্যের সাথে কাজ করে চলেছে।

ঠিকানা –
Manipal Hospital HAL Airport road
Manipal Hospital
98, HAL Airport road,
Bangalore – 560 017
Appointment Helpline: 1800 3001 4000
Enquiries: +91 80 40119000/2502 4444

কিন্তু যাদের সময় ও ধৈয্য আছে তারা চিকিৎসা করাবেন সি.এম.সি তে। সিএমসিতে চিকিৎসা বিশ্বমানের কিন্তু রোগীর আধিক্যের কারনে ডাক্তারের এ্যাপয়েন্টমেন্ট থেকে শুরু করে সব কিছুতেই সময় লাগবে বেশি। এখানে লাইনে দাড়াতে হবে, ওয়েটিং রুমে দীর্ঘ সময় বসে থাকতে হবে। যাদের সময় কিংবা ধৈয্য কম কিন্তু টাকা আছে তাদের সাজেস্ট করব চেন্নাই এ্যাপোলোতে চিকিৎসা করতে। আর যাদের সময়, ধৈয্য এবং টাকা সবই কম তাদের জন্য পরামর্শ দেব শ্রি রামচন্দ্র বা নারায়নী হাসপাতালে চিকিৎসা করতে। দুইটির মধ্যে শ্রি রামচন্দ্র হাসপাতাল কিছুটা হলেও এগিয়ে।

Galiff Street Market :: Pet Lovers Paradise

Every Sunday morning pet lovers plant lovers and many more from Kolkata and surrounding area come and gather a crowd here in this street. It is very close to Shyambazzar five-point crossing towards BT Road. As history says this market wad developed near Hatibagan in north Kolkata. But due to popularity and space constraint, this market was shifted to Galiff Street.

This is the oldest market for pets and its only open on Sundays. The market Starts at 4.30 am closes after late afternoon. Galiff Street Pet market is a pet lovers paradise. A hobbyist can find various species including rare varieties of dogs, birds, rabbits, fish and a lot more. Even some illegal species are also sold here most of the time.

One can buy almost every kind of pets and their accessories they think of. Most of the time they are cheaper than other pet shops in Kolkata and for some extra money, you can get the breed certificate also. Different variety of birds and cages are also available but some species are illegal so beware of that.

Lastly, there is the flower and plant market on the other side of the road. A plant or flower enthusiast’s paradise, this side of the market enchants with the bright hues and greens. There is an array of seasonal and flowering plants at the display, along with varieties of Bonsai and other essential garden plants. These wholesalers offer everything from pots to plant medicines for the needs of one’s garden.

galiff street


galiff street pet market

Swami Vivekananda Merit Cum Means Scholarship 2018

The Government of West Bengal provides Swami Vivekananda Scholarship at different levels of higher studies, at educational institutions based in West Bengal. The Swami Vivekananda Merit Cum Means Scholarship Scheme has been completely revised in the year 2016 to cover a number of students as well as to intensify the scholarship amounts significantly.

 Who are Eligible for SVMCM?

• For Higher Secondary level minimum 75% marks in 10th Standard from State board /
Madrasha board/Visva Bharati
• Family income should not be more than Rs. 2,50,000
• Should have domicile of West Bengal
• No academic year Gap with previous board/council/university examination

ALLOCATION AND RATE OF SCHOLARSHIP

The basic allocation and rates will be as under :

LEVEL COURSE RATE PER MONTH (RS.)
DPI UG (ARTS) 1000/-
UG(COMMERCE) 1000/-
UG (SCIENCE) 1500/-
UG (OTHER PROFESSIONAL COURSES, UGC APPROVED) 1500/-
PG (ARTS) 2000/-
PG (COMMERCE) 2000/-
PG (SCIENCE) 2500/-
PG (OTHER PROFESSIONAL COURSES, UGC APPROVED) 2500/-
NON NET M.PHIL./NON NET PH.D. 5000/- / 8000/-
DSE HS 1000/-
DTE UG (ENGG.), PG (ENGG.) AND OTHER PROFESSIONAL COURSES (AICTE APPROVED) 5000/-
DTE&T UG (POLYTECHNIC) 1500/-
DME UG (MEDICAL-DEGREE) AND DIPLOMA COURSES 5000/- AND 1500/- RESPECTIVELY

MEANS JUDGING CRITERIA

The total family income for the prospective scholars will be not more than Rs. 2,50,000/- per annum. While applying, all students will be required to enclose an Affidavit written on a Non-judicial Stamp Paper valued Rs. 10/- or more, and sworn by his/her parent/guardian before a Notary Public or a first-class magistrate, declaring their total family income from all sources (giving the detailed break-up) during the preceding financial year (i.e. from the 1st of April of the previous year to the 31st of March of the year of applying for the scholarship).

Any deliberate falsification in the Income documents discovered at any stage will be considered as a grievous offence and may invite serious disciplinary actions leading to (i) compulsory and immediate refund of the amount of scholarship already enjoyed by the scholar, (ii) complete forfeiture of his/her right to apply for any governmental scholarship in future and (iii) may also attract penal provisions of other relevant laws for the time being in force.

MERIT JUDGING CRITERIA

Candidates whose family income is not more than Rs. 2,50,000/- per annum will be judged according to their academic merit in the under noted manner.

For HS – level

The minimum qualifying marks for being considered for award of scholarships will be 75% in aggregate, in Madhyamik Pariksha, and the total marks obtained in the Madhyamik Parkisha excluding pass marks in the additional subject, if any, will be the sole criterion for consideration. Candidates from outside the West Bengal Board of Secondary Education will not be eligible to apply for this scholarship.

For Diploma – level

Students who are enrolled after passing out in Secondary (M.P) examination or its equivalent as stated above in 2016 for first year Diploma (Polytechnic) course[ H.S. Examination or its equivalent for Diploma in Pharmacy or Modern Office Practice and Management of two years duration] and after passing out in “West Bengal State Council of Vocational Education and Training “ courses, which is equivalent to H.S Examination for 2nd year Diploma(Polytechnic) courses on lateral entry basis, will be eligible to apply. Candidates must obtain at least 75% marks in aggregate in the qualifying examination for applying for the scholarship [excluding the marks secured in the optional elective subject, if any].

For UG – level

The minimum qualifying marks for being considered for award of scholarships will be 75% in aggregate, in the H.S. Examination conducted by the W.B. Council of H.S. Education/Madrasha Siksha Parishad. For the UG (Arts), UG (Commerce), UG (Science) separate merit lists will be prepared.

For PG – level

Candidates should be graduates securing at least 53% marks in the Honours subject at the graduation level. The marks obtained in Honours subject will be the only deciding criterion academically for the award of the PG-level scholarships. Kanyashree recipients (K-2) (married/unmarried) pursuing Post Graduate courses in Science, Arts, and Commerce stream from Universities of this State after obtaining Under Graduate Degree with 45% marks in aggregate from Institutions of this State will come under the aegis of this Scholarship Scheme. There is no need to submit Income Certificate and Income Affidavit in respect of Kanyashree students applying for K-3 scholarship under Swami Vivekananda Merit–cum–Means Scholarship Scheme.

APPLICATION AND SANCTION PROCEDURES

Candidates for different categories will submit their applications online in the scholarship portal and applications i.r.o scholarship cases would be arranged in descending order (on the basis of marks obtained in the qualifying examination apart from income/means criteria), and scholarship would be sanctioned as per the availability of fund and strictly on the basis of the merit list. the fund may be transferred to the beneficiaries account if the documents are in order.

RENEWAL OF SCHOLARSHIP

For renewal of scholarship, the application must be submitted online to the concerned scholarship sanctioning authority within one month from the date of his/her admission in the next higher class due to promotion by passing in the first attempt. (In case of Semester mode-All Semester Examinations need to be cleared in the first attempt). Renewal cases (concentrated only at a particular level of study) will be sanctioned subject to good academic performance (Minimum 60% marks should be obtained from Higher Secondary Level to Undergraduate Level at the promotional examination) and 50% marks at Post Graduate Level).

 

Income Ceritificate

Income Affidiavit 

Guidebook

 

Ayushman Bharat :: Free Health Scheme :: How To Apply 2018

Ayushman Bharat is India’s National Health protection scheme for poor people. This independence day our PM announced Ayushman Bharat for 10 crore families all over India which apparently cover over 50 crore beneficiaries.

  • Increased benefit cover to nearly 40% of the population, (the poorest & the vulnerable)
  • Covering almost all secondary and many tertiary hospitalizations. (except a negative list)
  • Coverage of 5 lakh for each family, (no restriction of family size)

KEY BENEFITS OF THE MISSION

A cover of Rs. 5 Lakhs per family per year for secondary and tertiary care
There is no restriction on family size, age or gender
All members of eligible families as present in SECC database are automatically covered
No money needs to be paid by the family for treatment in case of hospitalization
All pre-existing conditions are covered from day one of the policy. The benefit cover will include pre & post hospitalization
You can go to public or empanelled private hospitals across the country and get free treatment
You need to carry any prescribed ID to receive treatment at the hospital

Eligibility criteria for Ayushman Bharat scheme: Eligibility Guideline

In rural areas:

1. Families living in only one room with “kuchcha walls and kuchcha roof”

2.Families with no adult members aged between 16 and 59

3.Female-headed family with no adult male member in the 16-59 age group

4. Families having at least one disabled member and no able-bodied adult member

5.SC/ST households

6.Landless households deriving a major part of their income from manual casual labour

7.Destitutes and those surviving on alms

8.Manual scavenger families

9.Primitive tribal groups

10.Legally-released bonded labourer

In urban areas:

The government has made a list of these 11 occupational categories of workers who are automatically included in the list:

1.Rag picker

2.Beggar

3.Domestic worker

4.Street vendor/cobbler/ hawker/ other service provider working on streets

5.Construction worker/ plumber/ mason/ labour/ painter/ welder/ security guard/ coolie and other head-load workers

6.Sweeper/ sanitation worker / gardener

7.Home-based worker/ artisan/ handicrafts worker / tailor

8.Transport worker/ driver/ conductor/ helper to drivers and conductors/ cart puller/ rickshaw puller

9.Shop worker/ assistant/ peon in small establishment/ helper/ delivery assistant / attendant/ waiter

10.Electrician/ mechanic/ assembler/ repair worker

11.Washer-man/ chowkidar

 

Here is the link for the actual website 

Home Page Of Ayushman Bharat